ডাকসুতে জাতীয় নির্বাচনের পুনরাবৃত্তি: ঐক্যফ্রন্ট

0
4

অনলাইন ডেস্কঃ
ডাকসুতে ৩০ ডিসেম্বরের একাদশ সংসদ নির্বাচনে ভোট ডাকাতির পুনরাবৃত্তি হয়েছে বলে অভিযোগ করেছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। রাজধানীর মতিঝিলে সোমবার ফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেনের কার্যালয়ে তার নেতৃত্বে স্টিয়ারিং কমিটির বৈঠকের পর বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এ অভিযোগ করেন।

বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়, ঐক্যফ্রন্ট নেতারা বিভাগীয় ও জেলা পর্যায়ে সফর করবেন এবং সাংসদ হিসেবে শপথ নেওয়ায় গণফোরাম থেকে নির্বাচিত সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমেদের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

ঐক্যফ্রন্টের মুখপাত্র মির্জা ফখরুল অভিযোগ করেন, ২৮ বছর পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) যে নির্বাচন হলো, সেই নির্বাচন নিয়ে দেশের ছাত্রসমাজের এমনকি রাজনৈতিক মহলেও একটি আগ্রহ সৃষ্টি হয়েছিল। তারা মনে করেছিলেন, এ নির্বাচনের মধ্য দিয়ে নতুন সম্ভাবনা দেখা দিতে পারে। তবে দুর্ভাগ্যের বিষয়, এখানেও জাতীয় নির্বাচনের মতো ঘটনারই পুনরাবৃত্তি হয়েছে।

তিনি বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা সরকারি ছাত্র সংগঠনের ভোট ডাকাতি, গুণ্ডামি, সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যে প্রতিবাদ করেছেন, তাদের সেই ন্যায্য দাবির প্রতি জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট সমর্থন জানিয়েছে। মির্জা ফখরুল অভিযোগ করেন, উপজেলা পরিষদের প্রথম পর্যায়ের একটা নির্বাচন হয়েছে। সেই নির্বাচনেও সাধারণ মানুষ অংশ নেয়নি। ৩০ ডিসেম্বর জাতীয় নির্বাচনে নজিরবিহীন ভোট ডাকাতির নীরব প্রতিবাদে জনগণ উপজেলা নির্বাচন থেকে বিরত থেকেছে। এসব নির্বাচনের (ডাকসু ও উপজেলা নির্বাচনের প্রথম পর্ব) মাধ্যমে এটা আবারও প্রমাণ হলো, প্রকৃতপক্ষে দেশের পুরো নির্বাচনী ব্যবস্থাই ভেঙে গেছে।

ড. কামাল হোসেন বলেন, দেশে ‘অনিয়মের ঐক্যে’র বিরুদ্ধে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ঐক্য আরও সুদৃঢ় করা হবে। তিনি আশা প্রকাশ করেন, দেশে কার্যকর গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা ও আইনের শাসন রক্ষায় তাদের মধ্যে ঐকমত্য হয়েছে। ঐক্যের পক্ষে সবাই একমত। ঐক্যকে সুসংহত করার কোনো বিকল্প নেই। দেশের ১৬ কোটি মানুষের আকাঙ্ক্ষা বাস্তবায়ন করতে হলে এ ঐক্যের শক্তির মধ্য দিয়েই তা সম্ভব হবে।

স্টিয়ারিং কমিটির সভার সিদ্ধান্ত জানিয়ে বিএনপি মহাসচিব বলেন, তারা সুলতান মনসুরের শপথ গ্রহণের ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছেন। ঐক্যফ্রন্ট মনে করছে, তাকে সংসদ সদস্যের যে পদ দেওয়া হয়েছে সেটা অবৈধ, বেআইনি। এ বিষয়ে তারা যথাযথ আইনি পদক্ষেপ নেবেন।

গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির সরকারের উদ্যোগের প্রতিবাদ জানিয়ে এই পথ থেকে সরকারকে সরে আসার আহ্বান জানান মির্জা ফখরুল। বিভাগীয় ও জেলা পর্যায়ে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতারা সমাবেশ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানান তিনি।

বৈঠক সূত্র জানিয়েছে, সুলতান মনসুরের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নিতে গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরীকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। তিনি সুলতান মোহাম্মদ মনসুরকে দল থেকে বহিস্কারের কারণ দেখিয়ে স্পিকারকে চিঠি দেবেন।

বৈঠকে জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রব, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আবদুল মঈন খান, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি সুব্রত চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টু, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের হাবিবুর রহমান তালুকদার, গণফোরামের জগলুল হায়দার আফ্রিক, মোশতাক আহমেদ, নাগরিক ঐক্যের শহিদুল্লাহ কায়সার, জাহেদ-উর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here