বন্দুক আইনে পরিবর্তন আনছে নিউজিল্যান্ড

0
6

অনলাইন ডেস্কঃ
নিউজিল্যান্ডে বন্দুক আইনে পরিবর্তন আনার আভাস দিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা আর্ডান। শুক্রবার নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে জুমার নামাজের সময় দুটি মসজিদে সন্ত্রাসী হামলায় ৪৯ জনের প্রাণহানি হয়েছে। দেশটির ইতিহাসে নৃশংসতম এ হামলার পরিপ্রেক্ষিতে একদিন পরই প্রধানমন্ত্রীর তরফ থেকে বন্দুক আইনে পরিবর্তন আনার আভাস এলো।

৫০ লাখ মানুষের বসবাস নিউজল্যান্ডে প্রায় ১২ লাখ মানুষের হাতে বন্দুকের লাইসেন্স রয়েছে। দেশটিতে ২০০৯ সালে গুলি করে এক সঙ্গে ৯ জন খুনের ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনার পর বন্দুকের লাইসেন্স নীতিতে কিছু পরিবর্তন আনা হয়।

শুক্রবার প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা আর্ডান সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘যেহেতু এ ধরনের ঘটনা একের পর ঘটেই যাচ্ছে এবং এগুলো লাইসেন্স করা বন্দুক দিয়েই হচ্ছে, তাই আমি ঠিক এই মুহূর্তে আপনাদেরকে বলতে পারি..আমাদের বন্দুক আইনে পরিবর্তন আসবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘হামলাকারীর কাছে পাঁচটি বন্দুক ও একটি লাইসেন্স পাওয়া গেছে। লাইসেন্সটি ২০১৭ সালের নভেম্বরে দেয়া হয়েছিল। তার কাছে পাওয়া অস্ত্রগুগুলোর মধ্যে দুইটি সেমি-অটোমেটিক, দুটি শটগান ও লিভার অ্যাকশন ফায়ারআর্ম।’

শনিবার আদালতে হাজির করানো হবে অপরাধীকে

সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী আরও জানান, নৃশংসতম এ হামলার মূল সন্দেহভাজন একজন অষ্ট্রেলিয়ার নাগরিক। তাকে শনিবার সকালে আদালতে হাজির করানো হবে। তবে ওই ব্যক্তির নাম জানাননি তিনি। এমনকি এ ঘটনায় দুইজনকে আটক করেছে দেশটির আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। তাদেরও পরিচয় জানাননি আর্ডান। তবে এ ঘটনায় যাদের আটক করা হয়েছে তাদের নামে আগে কোনো ফৌজদারি অপরাধের রেকর্ড নেই বলে তিনি জানিয়েছেন।

সন্ত্রাসী ওই হামলার ঘটনায় এখন পর্যন্ত অন্তত ৪৯ জনের নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। দেশটির পুলিশের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, নিউজিল্যান্ডের প্রতিবেশী দেশ অস্ট্রেলিয়ার একজন চরমপন্থীর নেতৃত্বে এ হামলার ঘটনাটি ঘটেছে। হামলায় ২০ জনেরও বেশি মানুষ আহত হয়েছেন বলে প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে। তবে আহতদের মধ্যে একজন হামলাকারীও রয়েছে।

হামলায় কয়েক মিনিটের ব্যবধানে বেঁচে গেছে বাংলাদেশের ক্রিকেট দল। তার আগে শুক্রবার স্থানীয় সময় দুপুরে ক্রাইস্টচার্চে টিম বাসে করে হাগলি পার্কের নিকটে একটি মসজিদে নামাজ পড়তে যাচ্ছিলেন তামিম, মিরাজ, তাইজুল, মুশফিকরা। এসময় তাদের সঙ্গ দিতে সাথেই ছিলেন সৌম্য সরকার, দলের স্ট্রেন্থ ও কন্ডিশনিং কোচ মারিও ভিল্লাভারায়ন, দলের ডাটা অ্যানালিস্ট শ্রিনিবাসসহ বেশ কয়েকজন সদস্য।

হুট করেই স্থানীয় সময় বেলার ১টা ৪০ মিনিটের দিকে বন্দুকধারী এক ব্যক্তি অতর্কিতভাবে ক্রাইস্টচার্চের সেন্ট্রাল মসজিদে ঢুকে এলোপাথারি গুলি শুরু করলে নিহত হন ছয়জন। তবে ঘটনার আকস্মিকতা টের পেয়ে বাস থেকে নেমে দ্রুতই হাগলি পার্ক দিয়ে মাঠে ফিরে যান তামিম-মিরাজরা।

মসজিদে ঢোকার ঠিক আগ মুহূর্তে অজ্ঞাত এক নারী এসে তামিমদের সতর্ক করে জানান যে, মসজিদের ভেতরে গোলাগুলি হচ্ছে, এখন ভেতরে যাওয়া ঠিক হবে না। এরপর তারা সেখান থেকে ফিরে যান। ফলে এ যাত্রায় প্রাণে বেঁচে যান তারা।

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদে জোড়া হামলার ঘটনার পর থেকে নয়জন ভারতীয় নিখোঁজ রয়েছেন। হায়দরাবাদে থাকা একটি পরিবারের দুই সদস্যের মধ্যে একজন নিহত হয়েছেন এ ঘটনায়। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির খবরে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এদিকে পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মোহাম্মদ ফয়সালের উদ্ধৃতি দিয়ে পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম ডনের খবরে বলা হয়েছে, এ ঘটনায় আহত চার পাকিস্তানি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন এবং পাঁচজন নিখোঁজ রয়েছেন। ওই ঘটনায় সর্বশেষ ৪৯ জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দুই মসজিদে ভয়াবহ হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন বিশ্বের বিভিন্ন দেশের নেতারা। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের প্রধান এ নিয়ে বিবৃতি দিয়ে সমবেদনা প্রকাশ করেছেন। কিন্তু ব্যতিক্রম ছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডেনাল্ড ট্রাম্প। এ বিষয়ে তাকে কোন বিবৃতি দিতে দেখা যায়নি।

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দুটি মসজিদে বন্দুকধারীর হামলায় ৪৯ জন নিহত হওয়ার ঘটনাকে বর্ণবাদী ও ফ্যাসিবাদী হামলা বলে অভিহিত করেছেন তুরুস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোয়ান।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here