যেসব খাবার কখনোই প্রেসার কুকারে রান্না করবেন না

0
3

লাইফস্টাইল ডেস্কঃ
বর্তমান ব্যস্ত সময়ে দ্রুত রান্নার জন্য ব্যবহার করা হয় প্রেসার কুকার। এতে খুব সহজে এবং দ্রুত রান্না করা সম্ভব। বিশেষ করে মাংসজাতীয় খাবার রান্নায় প্রেসার কুকার ব্যবহার করা হয়। এছাড়াও দ্রুত সেদ্ধ করতে অনেক খাবারই প্রেসার কুকারে রান্না করা হয়। এতে সময় বাঁচে অনেকটাই। কিন্তু এমনকিছু খাবার আছে যা প্রেসার কুকারে রান্না করলে খাদ্যগুণ নষ্ট তো হয়ই, ঘটতে পারে বড় কোনো দুর্ঘটনাও। তাই এই খাবারগুলো কখনোই প্রেসার কুকারে রান্না করবেন না-

মাছ:
মাছ এমন একটি খাবার যা রান্না করতে খুব বেশি সময় লাগে না। এটি অতিরিক্ত রান্না করলে পুষ্টিগুণ নষ্ট হয়। আবার বেশি সময় ধরে মাছ রান্না করা হলে তা সহজেই ভেঙে যায়। তাতে তরকারি দেখতে খারাপ লাগে আর স্বাদ তো নষ্ট হয়ই। তাই প্রেসার কুকারে মাছ রান্না না করাই ভালো।

দুধ:
দুধ ফুটতে শুরু করলেই উপচে ওঠে। তাই প্রেসার কুকারে দুধ বা দুধ দিয়ে কোনো খাবার যেমন পায়েশ বা ফিরনি রান্না করতে নিলে তা আটকে গিয়ে প্রেসার কুকার ব্লাস্ট হতে পারে। তাই বড় দুর্ঘটনা এড়াতে প্রেসার কুকারে দুধ বা দুধ দিয়ে কোনো খাবার রান্না করতে যাবেন না।

ডিম সেদ্ধ:
ডিম সেদ্ধ করতে চাইলে বা রান্না করতে চাইলে সাধারণ হাঁড়িতেই করে নিন। কারণ ডিম প্রেসার কুকারে সেদ্ধ করতে চাইলে বড় মাপের দুর্ঘটনার আশঙ্কা থাকে। তাই ভুলেও কখনো প্রেসার কুকারে ডিম সেদ্ধ করতে যাবেন না।

সবজি ও ফল:
ফল কিংবা যেকোনো ধরনের শাক-সবজি বেশি রান্না করলে পুষ্টিগুণ পুরোপুরি চলে যায়। প্রেসার কুকারে এসব রান্না করলে এর ভিটামিন, মিনারেলসহ অন্যান্য পুষ্টি উপাদান একেবারেই নষ্ট হয়ে যায়। তাই এ ধরনের খাবার কখনো প্রেসার কুকারে রান্না করবেন না।

খেয়াল করুন:
প্রেসার কুকারে রান্নার সময় সবার আগে যে বিষয়টি খেয়াল করবেন তা হলো, এর ঢাকনা ঠিকভাবে আটকানো হয়েছে কি না। ঢাকনা ঠিকভাবে আটকে দেয়ার পরেই প্রেসার কুকার চুলায় বসান।

অনেকেই রান্না শেষে প্রেসার কুকারে বাষ্প থাকা অবস্থায়ই ঢাকনা খোলার চেষ্টা করেন। এটি ঠিক নয়। কারণ এর ফলে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। তাই ভেতরের বাষ্প পুরোপুরি বের হলে তবেই প্রেসারের কুকারের ঢাকনা খুলবেন।

চুলা বন্ধা করার পরপরই তাড়াহুড়ো করবেন না। চুলা নেভানোর পর অন্তত ১৫ মিনিট অপেক্ষা করে প্রেসার কুকারের মুখ খুলুন।

ডাল বা এমন যে খাবারগুলো উপচে ওঠে বেশি, সেগুলো প্রেসার কুকারে রান্না করতে হলে অল্প পরিমাণে করুন। পরিমাণ বেশি হলে দুর্ঘটনা ঘটে যেতে পারে।

প্রেসার কুকার যদি অনেক দিনের পুরানো হয় তবে তা ব্যবহার না করে নতুন প্রেসার কুকার ব্যবহার করুন। দীর্ঘদিনের প্রেসার কুকার ব্যবহার করলে দুর্ঘটনার ঝুঁকি বাড়ে।

সূত্রঃ জাগোনিউজ

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here